আজ বৃহস্পতিবার। ১৮ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ। ৫ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ। ৮ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি। এখন সময় রাত ১০:৫৯

লাশের পেটে ইয়াবা

লাশের পেটে ইয়াবা
নিউজ টি শেয়ার করুন..

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (ঢামেক) মর্গে ময়নাতদন্তের সময় এক যুবকের লাশের পেটে ইয়াবা পাওয়া গেছে। আট প্যাকটে ইয়াবা গলে পাকস্থলিতে ছড়িয়ে পড়ে এবং তিন প্যাকেটের ইয়াবা বের করা হয়েছে।

পলিথিনে বিশেষ কৌশলে মোড়ানো প্রতিটি প্যাকেটে অন্তত ২৫টি ইয়াবা ছিল। মতিঝিল থানা থেকে শুক্রবার সন্ধ্যায় লাশটি পাঠানো হয় মর্গে। শনিবার সকালে লাশের ময়নাতদন্ত করা হয়।

নিহত যুবকের নাম জুলহাস। তার বাড়ি নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার ডুগিয়ায়।

ঢামেকের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ও সহযোগী অধ্যাপক ডা. সোহেল মাহমুদ বলেন, ময়নাতদন্তের সময় পেটে ১১ প্যাকেট ইয়াবা পাওয়া যায়। তিনটি প্যাকেটের ইয়াবা বের করা হয়। প্রতিটি প্যাকেটে অন্তত ২৫টি ইয়াবা ছিল।

তিনি বলেন, এ ছাড়া আট প্যাকেটের ইয়াবা গলে পাকস্থলিতে ছড়িয়ে পড়ে। ইয়াবা গলে পাকস্থলিতে বিষক্রিয়া সৃষ্টি হওয়ায় তার মৃত্যু হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। ইয়াবা পাওয়ার বিষয়টি মতিঝিল থানায় জানানো হয়েছে।

মাদক বিরোধী অভিযানের মধ্যেও মাদক কেনাবেচা বন্ধ হয়নি। কারবারিরা নানা কৌশলে ইয়াবা সরবরাহ করছে। ইয়াবা বহনে মানুষের ‘পাকস্থলি ভাড়া’ নিচ্ছে তারা।

টাকার বিনিময়ে ইয়াবা বহনকারীরা পলিথিনের বিশেষ প্যাকেটে ইয়াবা পেটে ঢুকিয়ে ঢাকায় নিয়ে আসছে। পাকস্থলিতে ইয়াবা প্রবেশ করানোর পর তারা পায়ুপথ দিয়ে বের করে। এটি মানবদেহের জন্য খুবই ঝুঁকিপুর্ণ। পুলিশের ধারণা, জুলহাস ইয়াবা কারবারিতে জড়িত।

মতিঝিল থানার ওসি ওমর ফারুক জানান, শুক্রবার ভোরে মতিঝিলের বিশ্বাস টাওয়ারের সামনে ওই যুবক অচেতন অববস্থায় পড়ে ছিল। তাকে সুস্থ করার চেষ্টায় পথচারিরা মাথায় পানি ঢালছিল। সেখান থেকে থানা পুলিশের একটি দল তাকে উদ্ধার করে মুগদা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে বেলা ১১টার দিকে তার মৃত্যু হয়। ময়নাতদন্তের জন্য সন্ধ্যায় লাশ মর্গে পাঠানো হয়।

নিউজ টি শেয়ার করুন..

সর্বশেষ খবর

আরো খবর