আজ শনিবার। ১৮ই মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ। ৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ। ৯ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি। এখন সময় বিকাল ৩:৩২

অসুস্থ শিক্ষার্থী পরিবহনে যবিপ্রবির এ্যাম্বুলেন্স না দেওয়ার অভিযোগ

অসুস্থ শিক্ষার্থী পরিবহনে যবিপ্রবির এ্যাম্বুলেন্স না দেওয়ার অভিযোগ
নিউজ টি শেয়ার করুন..

জুবায়ের হাসান,যবিপ্রবি প্রতিনিধিঃ
যশোরবিজ্ঞানওপ্রযুক্তিবিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়লে তৎক্ষণাৎ তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিক্যাল সেন্টারে নিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হয়। পরবর্তীতে এ্যাম্বুলেন্সযোগে যশোর শহরস্থ বাসায় ফেরার জন্য এ্যাম্বুলেন্স দেওয়া হয় না বলে অভিযোগ শিক্ষার্থীদের। আজ ০৭ এপ্রিল রবিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনে এ ঘটনা ঘটে।
অসুস্থ মন্দিরা দত্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের তড়িৎওইলেক্ট্রনিকপ্রকৌশলবিভাগেরদ্বিতীয়বর্ষের প্রথম সেমিস্টারের শিক্ষার্থী।
তড়িৎওইলেক্ট্রনিকপ্রকৌশলবিভাগের তৃতীয় বর্ষেরশিক্ষার্থী মেহেদি হাসান জানান, মন্দিরা অসুস্থ হলে বিশ্ববিদ্যালয়ের এ্যাম্বুলেন্সযোগে মেডিক্যাল সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে দায়িক্তরত চিকিৎসক তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিলে আমরা তাকে যশোর শহরস্থ বাসায় পৌঁছে দেবার জন্য সিদ্ধান্ত নেই।
মন্দিরা বারবারই অজ্ঞান হয়ে যাচ্ছিল, আর তার ওই ধরনের শারীরিক অবস্থা নিয়ে দুর্ঘটনাপ্রবন রাস্তায় দুপুর বেলায় কোন ভাবেই এ্যাম্বুলেন্স বাদে অন্য কোন যানবাহনে নেওয়া সম্ভব ছিল না। কিন্তু মেডিক্যাল সেন্টার থেকে আমাদেরকে এ্যাম্বুলেন্স দেওয়া হয় না। পরে আমরা এমন অসুস্থ রোগীকে নিয়ে ভ্যানে করে শহরে তার বাসায় পৌঁছে দেই।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান চিকিৎসা কর্মকর্তা ডাঃ দীপক কুমার মণ্ডল মুঠোফোনে জানান, দুপুর বেলা এক শিক্ষার্থীকে তার কয়েকজন সহপাঠী অজ্ঞান অবস্থায় মেডিক্যাল সেন্টারে নিয়ে আসে।
আমি তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে পর্যবেক্ষণে রাখি। সে যেহেতু বারবারই সংজ্ঞা হারিয়ে ফেলছিল তাই তাকে আমি কিছুক্ষণ অপেক্ষা করতে বলি কিন্তু তার সহপাঠী ও বন্ধুরা তাকে নিয়ে যেতে চাইছিল , আমি তাদেরকে তৎক্ষণাৎ না গিয়ে পরবর্তীতে যাওয়ার জন্য বলি, পরে জানতে পারি তাকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এ্যাম্বুলেন্স না দেওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, এমন ঘটনা কখনও ঘটে না যে অসুস্থ শিক্ষার্থীদেরকে এ্যাম্বুলেন্স সেবা দেওয়া হয় না, আর এ্যাম্বুলেন্স দেওয়া হয়নি এটার বিষয়ে আমি কিছু জানি না।


নিউজ টি শেয়ার করুন..

সর্বশেষ খবর

আরো খবর