আজ বৃহস্পতিবার। ১৮ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ। ৫ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ। ৮ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি। এখন সময় রাত ১০:৪০

৪ মিনিট পর ক্লাসে আসায় ছাত্রীকে পিটিয়ে আহত করেছে শিক্ষক

৪ মিনিট পর ক্লাসে আসায় ছাত্রীকে পিটিয়ে আহত করেছে শিক্ষক
নিউজ টি শেয়ার করুন..

আজিজুল ইসলাম সজীব,হবিগঞ্জ প্রতিনিধি :

হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার শাহজিবাজার বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রীকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছেন সহকারী শিক্ষক হাবিবুর রহমান।

মঙ্গলবার (৯ এপ্রিল) দুপুরে এ ঘটনাটি ঘটে।
বর্তমানে তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় সাবিকুন নাহার মীম সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

আহত মীম উপজেলার কালিকাপুর এলাকার মাহবুব তালুকদারের কন্যা ।

মঙ্গলবার বেলা ৩ টার দিকে হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগে অজ্ঞান অবস্থায় ছিল মীম।

আহত মীমের সহপাঠীদের সঙ্গে আলাপ করে জানা যায়, দুপুরে টিফিন বিরতিতে শ্রেণিকক্ষ থেকে বেড়িয়ে যায় মীম ও তার সহপাঠিরা। নির্দিষ্ট সময়ের ৪ মিনিট পর ক্লাসে ফেরায় তাদের উপর চড়াও হন সহকারী শিক্ষক হাবিবুর রহমান। এ সময় শিক্ষকের উপর্যুপরি মারপিটে আরো তিন ছাত্রী আঘাতপ্রাপ্ত গুরুত্বর আহত হয়ে অজ্ঞান পর্যন্ত হয়ে পড়ে। এতে ও ঐ শিক্ষকের মায়া হয় নি, তিনি অজ্ঞান হয়ে যাওয় ছাত্রীকেে আবারও বেত ও ডাস্টার দিয়ে উপর্যুপরি আঘাত করতে থাকলে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে মীম।
পরে সহপাঠি ও অভিভাবকরা তাকে হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে আসেন। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে সিলেটে প্রেরণ করেন।

হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগে দায়িত্বরত মেডিকেল অফিসার ডা. কামরুল ইসলাম জানান, মেয়েটির মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত পেয়েছে। একাধিকবার বমিও করেছে সে। মস্তিস্কে রক্তক্ষরণের আশঙ্কা থাকায় তাকে সিলেটে প্রেরণ করা হয়েছে।

অভিযুক্ত শিক্ষক হাবিবুর রহমান বলেন, ‘ক্লাশের সময় বাইরে থাকায় বেত দিয়ে দু’টি আঘাত করেছি। এ ব্যপারে প্রধান শিক্ষকের সাথে কথা বলার পরামর্শ দেন তিনি।’

প্রধান শিক্ষক মো. আবুল হোসেন বলেন, এ বিষয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড এ ব্যপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।


নিউজ টি শেয়ার করুন..

সর্বশেষ খবর

আরো খবর