আজ শনিবার। ২৫শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ। ১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ। ১৬ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি। এখন সময় রাত ৪:২৮

৩ মাসে সড়ক দুর্ঘটনায় ১ হাজার ২১২ জন নিহত

সড়ক দূর্ঘটনায় প্রাণ গেল মটরসাইকেল যাত্রীর
নিউজ টি শেয়ার করুন..

চলতি বছরের প্রথম তিন মাসে দেশে মোট এক হাজার ১৬৮টি সড়ক দুর্ঘটনায় এক হাজার ২১২ জন নিহত ও দুই হাজার ৪২৯ জন আহত হয়েছেন। নিহতের মধ্যে ১৫৭ জন নারী ও ২১৫ জন শিশু রয়েছে। গত ১ জানুয়ারি থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত জাতীয় মহাসড়ক, আন্তঃজেলা সড়ক ও আঞ্চলিক সড়কসহ সারাদেশে এসব প্রাণঘাতি দুর্ঘটনা ঘটে।

মঙ্গলবার বেসরকারি সংগঠন নৌ, সড়ক ও রেলপথ রক্ষা জাতীয় কমিটির (এনসিপিএসআরআর) নিয়মিত মাসিক জরিপ ও পর্যবেক্ষণ প্রতিবেদনে এই তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। ২২টি বাংলা ও ইংরেজি জাতীয় দৈনিক, ১০টি আঞ্চলিক সংবাদপত্র এবং আটটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও সংবাদ সংস্থার তথ্যের ভিত্তিতে এই পরিসংখ্যান তৈরি করা হয়েছে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়।

এতে আরও বলা হয়, জানুয়ারি মাসে ৩৮৩টি সড়ক দুর্ঘটনায় ৫৩ জন নারী ও ৭১ জন শিশুসহ ৪১১ জনের প্রাণহানি এবং ৭২৫ জন আহত হয়েছেন। ফেব্রুয়ারিতে ৪০১টি দুর্ঘটনায় ৫৮ জন নারী ও ৬২ জন শিশুসহ ৪১৫ জন নিহত ও ৮৮৪ জন আহত হয়েছেন। সর্বশেষ মার্চে ৩৮৪টি দুর্ঘটনায় ৪৬ নারী ও ৮২ শিশুসহ ৩৮৬ জন নিহত ও ৮২০ জন আহত হয়েছেন।

জাতীয় কমিটির পর্যবেক্ষণে সড়ক দুর্ঘটনা বৃদ্ধির জন্য ১০টি কারণ চিহ্নিত করা হয়েছে। এগুলো হচ্ছে চালকদের প্রতিযোগিতামূলক মনোভাব ও বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানো; দিনভিত্তিক চুক্তিতে চালক, কন্ডাক্টর অথবা হেল্পারের কাছে গাড়ি ভাড়া দেওয়া; অদক্ষ ও লাইসেন্সবিহীন চালক নিয়োগ; সড়কে চলাচলে পথচারীদের অসতর্কতা; বিধি লঙ্ঘন করে ওভারলোডিং ও ওভারটেকিং; দীর্ঘক্ষণ বিরামহীনভাবে গাড়ি চালানো; ত্রুটিপূর্ণ গাড়ি চলাচল বন্ধে আইনের যথাযথ প্রয়োগের অভাব; জনবহুল এলাকাসহ দূরপাল্লার সড়কে ট্রাফিক আইন যথাযথভাবে অনুসরণ না করা; সড়ক-মহাসড়কে মোটরসাইকেলসহ তিন চাকার যানবাহন চলাচল বৃদ্ধি এবং স্থানীয়ভাবে তৈরি ইঞ্জিনচালিত ক্ষুদ্রযানে যাত্রী ও পণ্য পরিবহন।

নৌ, সড়ক ও রেলপথ রক্ষা জাতীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক আশীষ কুমার দে বলেছেন, দেশে সড়ক দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি উত্তরোত্তর বেড়েই চলেছে। শুধু আইন দিয়ে পরিস্থিতি মোকাবিলা করা যাবে না। এর বিরুদ্ধে জাতীয় জাগরণ সৃষ্টি করতে হবে। এছাড়া সড়কের ওপর নির্ভরশীলতা কমাতে নৌ ও রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা সম্প্রসারিত ও আধুনিকায়ন করা আবশ্যক। অন্যথায় নিকট ভবিষ্যতে সড়ক দুর্ঘটনা আরও ভয়ঙ্কর রূপ নেবে।


নিউজ টি শেয়ার করুন..

সর্বশেষ খবর

আরো খবর