আজ রবিবার। ৩রা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ। ১৯শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ। ২১শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি। এখন সময় দুপুর ২:০১

ভৈরবে শ্রেণিকক্ষে ঢুকে শিক্ষার্থীকে চড়ালেন আওয়ামীলীগ নেতার ভাই

ভৈরবে শ্রেণিকক্ষে ঢুকে শিক্ষার্থীকে চড়ালেন আওয়ামীলীগ নেতার ভাই
নিউজ টি শেয়ার করুন..

নাজির আহমেদ আল-আমিন,ভৈরব(কিশোরগঞ্জ):
কিশোরগঞ্জের ভৈরবে শ্রেণিকক্ষে ঢুকে এক শিক্ষার্থীকে চড়ালেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতার ভাই। এতে ক্ষোভে ফুসে ওঠেছে শিক্ষার্থীরা। একই সাথে বিচারের দাবীতে ও প্রতিবাদে বিদ্যালয়ের অধিকাংশ শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জন করে বিক্ষোভ করেছে। আজ রোববার দুপুরে উপজেলার শিবপুর ইউনিয়নের জামালপুর টেকনিক্যাল উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির একটি কক্ষে এই ঘটনা ঘটেছে।


জানাগেছে, গতকাল শনিবার সকালে জামালপুর টেকনিক্যাল উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণি পড়ুয়া দেলোয়ার একই শ্রেনির পড়ুয়া সানজিদা কক্ষে থেকে বের হওয়ার সময় পায়ে পা দিয়ে ফেলে দেয়। এতে সানজিদা আহত হয়। পরে অন্য সহপাঠিরা তাকে উদ্ধার করে প্রাথমিক সেবা দেয় এবং প্রধান শিক্ষকের কাছে বিচার প্রার্থী হয়। এর একদিন পর আজ দুপুরে পাঠদানের সময় শিবপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক উছমান গনির ভাই লিয়াকত আলী শ্রেনি কক্ষে ঢুকে কে? দেলোয়ার পরিচয় জানতে চান।

পরে দেলোয়ার দাড়াঁলে তার দু’গালে দু’টি চড় থাপ্পাড় দেন। একই সাথে অশালীন ভাষা গালমন্দ করে বলে দাবী শিক্ষার্থীদের। লিয়াকত আলী সম্পর্কে সানজিদার নানা হয়। তার এমন আচারণে শ্রেণি কক্ষের অন্য শিক্ষার্থীরা ভয়ে স্তব্ধ হয়ে পড়ে। পরে তিনি কক্ষ থেকে বেরিয়ে গেলে শিক্ষার্থীদের মাঝে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করে। এক পর্যায়ে তারা ক্লাস বর্জন করে বিক্ষোভ করে। এছাড়াও তুচ্ছ বিষয়কে কেনআদ্র করে গত ৫দিন আগে দশম শ্রেণি পড়–য়া আরেক শিক্ষার্থীকে এসএমলি করার সময় স্থানীয় আফজাল নামে এক ব্যক্তি শত শত শিক্ষার্থীর সামনে মারধর করেন।

দু’জন শিক্ষার্থীকে এভাবে সবার সামনে অপমান করায় সহপাঠিদের অনেকে কান্না ধরে রাখতে পারেনি। এদিকে শিক্ষার্থী দেলোয়ারের দাবী, তার অজান্তে পায়ে পা লাগলে সানজিদা পড়ে যায়। এতে সে অনুতপ্ত। অন্য দিকে লিয়াকত আলী মুঠোফোনে জানান, ঘটনার একদিন পার হয়ে যাওয়ায়।

আমি স্কুলে গিয়ে বিষয়টি জানতে চাইলে দেলোয়ার আমার সাথে অশোভন আচারণ করায় নিজেকে সামলাতে না পেরে তাকে থাপ্পর দেয়।
প্রত্যক্ষদর্শী শিক্ষিকা সুমা রাণী ও শিক্ষার্থীদের দাবী, পাঠদানের সময় শ্রেণি কক্ষে ঢুকে একজন শিক্ষার্থীকে এভাবে চড় থাপ্পর মারা ঠিক হয়নি। তাই, এ ঘটনার উপযুক্ত বিচার দাবী করেন তারা। তা- না হলে শিক্ষার্থীরা আগামীকাল ক্লাস বর্জনসহ আন্দোলনে নামবে বলে হুশিঁয়ারী দেয়।
প্রত্যক্ষদর্শী শিক্ষিকা সুমা রাণী ও শিক্ষার্থীদের দাবী, পাঠদানের সময় শ্রেণি কক্ষে ঢুকে একজন শিক্ষার্থীকে এভাবে চড় থাপ্পর মারা ঠিক হয়নি। তাই, এ ঘটনার উপযুক্ত বিচার দাবী করেন তারা। তা- না হলে শিক্ষার্থীরা আগামীকাল ক্লাস বর্জনসহ আন্দোলনে নামবে বলে হুশিঁয়ারী দেয়।
এ বিষয়ে জামালপুর টেকনিক্যাল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মামদুদা খাতুন বলেন, দেলোয়ার একজন দুষ্ঠু ছেলে। সে অন্যায় করলে, আমরাই তার বিচার করতে পারবো। তার মতে, এই চড় থাপ্পর শিক্ষার্থীকে দেয়া হয়নি। এটা আমাদের গায়ে পড়েছে।
জানতে চাইলে শিবপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক উছমান গনি বলেন, যেই হোক অন্যায় করলে তার বিচার হবে।

কিন্তু, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ঢুকে একজন শিক্ষার্থীকে চড় থাপ্পর মারা কোনো অবস্থায় সঠিক না। তাই, তিনি বিষয়টি দ্রুত সমাধানের উদ্যোগ নেবেন।
এ ব্যাপারে ভৈরব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইসরাত সাদমীন মুঠোফোনে বলেন, উপজেলা শিক্ষা অফিসারের মাধ্যমে দোষীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নিউজ টি শেয়ার করুন..

সর্বশেষ খবর

আরো খবর